Category Archives: Before 1900

Murari Mohan Gupta—Cultivation and nurturing of Dhrupad tradition in North Kolkata

Told by Partha Pratim Choudhury
Obtained by Suranjita Paul
Date 1st December 2016
Place SAP-LAB Department of Instrumental music. Rabindra Bharati University
About the speaker Partha Pratim Choudhury is a famed Pakhawaj player and Guest Faculty of the Department of Instrumental Music, Rabindra Bharati University.
Tags North Kolkata, Vishnupur, Dhrupad Gharana, Bagbazar, Thanthaniya, Sriram Chakraborty, Nimai Chakraborty, Murari Mohan Gupta, Pakhawaj, Mridanga, Srirampur College, Shibpur Engineering college, Shibdas Lane, Swami Vivekananda, Durlabha Bhattacharya, 1870, 1904, Lala Kebal Kishan
Language Bengali

Dr. Partha Pratim Choudhury speaks:

 

 

 

Metadata generated by Suranjita Paul

 Data processed at SAP-DRS Lab, Department of Instrumental Music, Rabindra Bharati University.

How can they play so fast! Unbelievable!—Silver Jubilee of Queen Victoria’s Coronation Ceremony

Told by Irfan Muhammad Khan
Obtained by Prof. Sanjoy Bandopadhyay and Troilee Dutta
Date 27 September, 2016
Place Residence of Prof. Sanjoy Bandopadhyay, 3/1/1D, Padmapukur Road, Kolkata 700092
On Irfan Muhammad Khan Irfan Md. Khan is an established Sarod Player. The scion of Lucknow Shahjanpur Gharana Sarod player. He represents the Lucknow-Shahjahanpur Gharana which has produced eminent Sarod players like Ustad Enayet Khan (1790-1883), Ustad Asadullah Khan Kaukab (1852-1919), Ustad Karamatuilah Khan (1848-1933), Prof. Sakhawat Hussain Khan (1875-1955), also his illustrious father Ustad Umar Khan (1916-1982) and his uncle Ustad Ilyas Khan (1924-1989) the famous Sitar player of Lucknow.
Key-words Queen Victoria, coronation, silver jubilee, fast gat, flat plate, Yusuf Ali Khan, sitariya, Lucknow, Motilal Nehru, 1887, saw blade
Language Hindi [also include some English and Bengali sentences.]

Irfan Muhammad Khan speaks:

 

 

Data processed at SAP-DRS Lab, Department of Instrumental Music, Rabindra Bharati University.

Lucknow-Shajehanpur sarod gharana connecting Calcutta—Irfan Muhammad Khan speaks

Told by Ustd. Irfan Muhammad Khan
Obtained by Prof. Sanjoy Bandopadhyay and Troilee Dutta
Date 27 September, 2016
Place Residence of Prof. Sanjoy Bandopadhyay, 3/1/1D, Padmapukur Road, Kolkata 700092
On Irfan Muhammad Khan Irfan Md. Khan is an established Sarod Player. The scion of Lucknow Shahjanpur Gharana Sarod player. He represents the Lucknow-Shahjahanpur Gharana which has produced eminent Sarod players like Ustad Enayet Khan (1790-1883), Ustad Asadullah Khan Kaukab (1852-1919), Ustad Karamatuilah Khan (1848-1933), Prof. Sakhawat Hussain Khan (1875-1955), also his illustrious father Ustad Umar Khan (1916-1982) and his uncle Ustad Ilyas Khan (1924-1989) the famous Sitar player of Lucknow.
Key-words 1880, Enayet Khan, sarodiya, sarod, Kolkata, Kashem Ali Khan, 1887, England, Atta Khan, Murshidabad, Niyamatullah Khan, Wazed Ali, Basat Khan, Karamatullah Khan, Lucknow, Metiaburuj, 1872, Kobila, Bhawal State, Shafayet Khan, Junagarh, Shakhawat Khan, Shahjahanpur, Nepal, Delhi, Pratibha Debi, Devi, Sangeet sabha, Kaukab Khan, haren Sheel, Sil, Gobar Guha, Banjo, sarod, Dhiren Bose, Kali Pal, Paul, J.C. Bose, Jagadish Chandra, Hirendra nath Chattopadhyay, Pratap Chandra Chandra, Kedara, madhyam, Kaukabh
Language Hindi [also include some English and Bengali sentences.]

Ustd. Irfan Muhammad Khan speaks:

 

Data processed at SAP-DRS Lab, Department of Instrumental Music, Rabindra Bharati University.

 

 

S.M. Tagore writes on Chhalikya Geet

Amrita Bazar Patrika published a letter from Raja Sourindra Mohun Tagore on page 3 of their 09 January 1873 edition.  Tagore wrote that he put his efforts to decipher the meaning of ‘Chhalikya Geet’ that occurred in the 147th chapter in the 21st sloka of Haribangsha. He did it under the requests of Ishwar Chandra Vidyasagar and Rajendra lal Mitra.

0002-09jan1873-smtagore

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Identified by Rajeswary Ganguly Banerjee, Project Fellow.

Data processed at SAP-DRS Lab, Department of Instrumental Music, Rabindra Bharati University.

Raga applications in 19th century Prabandha and Darbari music in Kolkata

Told by Dr. Pradip Ghosh
Obtained by Prof. Sanjoy Bandopadhyay and Suranjita Paul
Date 11 July, 2016
Place SAP-DRS Lab, Sangeet Bhavan, Rabindra Bharati University
On Dr. Pradip Ghosh Dr. Pradip Ghosh is an erudite music scholar and renowned musicologist.
Key-words Robi Thakur, late 17thcentury, early 18th century, Carnatic, Karnatic, Bhasha Ragam, Raganga Ragam, Wajed Ali Shah, gharana, National Library, Dwijendra Nath Thakur, Pathuriaghata, Thakurbari, Gauripur, Burdwan Rajbari, 1856, Vasat Khan, Veen, sarod, sitar, Chhatubabu, Atul Chand Mitra, Banga Aikyatan, Sourindra Mohun Tagore, Shobhabazar, Deb bari, Enayet Khan, Chhotebibi, instrument, vocal
Language Bengali

Dr. Pradip Ghosh speaks:

 

Briefly on Classical Music as cultivated in Kolkata and around during 18th – 19th centuries

Told by Dr. Pradip Ghosh
Obtained by Prof. Sanjoy Bandopadhyay and Suranjita Paul
Date 11 July, 2016
Place SAP-DRS Lab, Sangeet Bhavan, Rabindra Bharati University
On Dr. Pradip Ghosh Dr. Pradip Ghosh is an erudite music scholar and renowned musicologist.
Key-words Shah Suja, Naubat Khan, Misri Sing, Kalowat, 17th century, Kirtan, 1772, 1756, Lord Clive, Mir Jafar, Shobabazar rajbari, Warren Hastings, Bhu Kailash, Mukherjee, Nidhubabu, 1749, 1838, Akhrai gaan, instituions
Language Bengali

Dr. Pradip Ghosh speaks:

কলকাতায় (সংগীত) চর্চার পূর্বের কথা একটু বলা দরকার, অন্যান্য জায়গায় যা যা হয়েছিল- মুর্শিদাবাদ, নদীয়া-এই সব জায়গার জমিদার, রাজা ইত্যাদি যারা ছিলেন তাঁরা চর্চা করার সুযোগ পান। ভারতচন্দ্রের মঙ্গল কাব্যে আমরা পাই বিশ্রাম খাঁ ইত্যাদি ওস্তাদ সমূহের নাম পাই। সেখানে string instrument-ও আছে pecussion-ও আছে গায়ক-ও আছেন। বিশ্রাম খাঁ-কে  কলাবন্ত  বলা হয়েছে। কলাবন্ত  হলেন যারা ধ্রুপদ গাইতেন- কোথা থেকে এসেছেন? ইতিহাস-এ পাই শাহজাহান-এর এক ছেলে শাহ সুজা- তিনি বাংলার গভর্নর হয়ে এসেছিলেন, [কলাবন্ত  চলতি ভাষায় বলা হয়, কালোয়াত যাঁরা ধ্রুপদ গাইতেন আর খয়াল যাঁরা গাইতেন তাঁদের বলা হত কাওয়াল যেমন বসির খাঁ কাওয়াল -(১)  religious কাওয়ালী আর (২) secular, যা কিনা আমীর খুস্রো তৈরী করেছিলেন, এই সংগীত court গাওয়া হত।] সুতরাং দেখা যাচ্ছে শাহ সুজা-র সভায় আমরা বহু musician-কে পাই যাঁদেরকে উনি সাথে নিয়ে এসেছিলেন যেমন নওবত খাঁ বা মিস্রি সিং (বলা হয় তানসেন-এর জামাতা) তিনি একজন ধ্রুপদি, instrumentalist নন, এ ধারনা ভ্রান্ত।

শাহ সুজার দরবারী মিস্রি  সিং,  তিনি চিটাগং গিয়েছিলেন, এর প্রমাণ-ও রয়েছে। অর্থাৎ  এই সময় মোঘল সাম্রাজ্যের অবস্থা খুব একটা ভাল ছিল না, কাজেই ওস্তাদ-দের জীবিকা অর্জন-এর জন্য পারিপার্শ্বস্থ দরবার-এ যেতে হত। আমার ধারনা তাই। কারণ মুর্শিদাবাদ কিংবা নদীয়া প্রভৃতি দরবারে পশ্চিমি কালোয়াত-রা এলেন কোথা থেকে? আমার ধারনা শাহ সুজার দরবার থেকেই এসেছিলেন। এটা হচ্ছে early status যখন classical music-র চর্চা হত- সেই সংগীত কিন্তু সাধারণ মানুষ শুনতে পেতো না, কেবল elit society-র লোক যাদের দরবারে যাতায়াত ছিলো কিংবা বড়ো বড়ো জমিদার যাদের সাথে মোঘল-দের ভালো সম্পর্ক ছিল তাঁরা শুনতে পেতেন—এটা মোটামুটি ১৭-শ শতাব্দীর কথা।

তখনো বসাক-দের classical music চর্চার সময় আসেনি, তখনও তারা কীর্ত্তন চর্চা-র মধ্যেই রয়েছেন— যদি কীর্ত্তন-কে classical music বলেন তাহলে আপত্তি নেই কিন্তু সেটা দরবারী নয়—তা হল religious music। এরপর আমরা দেখতে পাচ্ছি ১৭৫৭ সালে পলাশীর যুদ্ধে ইংরেজরা বাংলা দখল করল। এর আগে ইংরেজ বাংলায় এসেছিল। ইষ্ট-ইন্ডিয়া কম্পানি বানিজ্যের খাতিরে কিছু সুযোগ-সুবিধা চেয়েছিল যা তৎকালীন বাংলার নবাব দেননি। সুতরাং তখন থেকেই একটা পরিকল্পনা ছিল, কি করে বাংলা দখল করা যায়। এর পরে লর্ড ক্লাইভ ক্ষমতায় এলেন। তিনি নবাব-কে (মীরজাফর) চতুরতার সাহায্যে non-working  করে বসিয়ে রাখার বন্দোবস্ত করলেন। দেওয়ানী অর্থাৎ revenue-র অংশ নিজেদের হাতে রাখলেন এবং ফৌজদারী নবাব-এর হাতে রইল- সুতরাং সারটুকু নিয়ে যাবার ব্যবস্থা করল ইংরেজ।

যখনই হাতে অর্থ আসে entertainment ব্যপার-টা গুলিয়ে যায়, সবসময় যে তা knowledgeable হয় তা নয়। সেই সময় ক্লাইভ (কলকাতার) বহু পরিবার যেমন শোভাবাজার রাজ পরিবারে প্রায়শই আসতেন। একবার সিরাজ-এর ভয়ে এই বন্ধুভাবাপন্ন পরিবার গুলির আশ্রয়েই লুকিয়েছিলেন, পরে তিনি এর জন্যে সকলকে পুরষ্কৃত করেন। এরপর ১৭৭২-এ যখন ওয়ারেন হেস্টিংস ক্ষমতায় এলেন তিনি অনেক সংস্কার সআধন করেন, যদিও তাতে ইংরেজ-দের উপকারই বেশী হয়েছিল। হেস্টিংস বহু জায়গায় গান শুনতে আসতেন-তা শোভাবাজার রাজ পরিবার হোক বা ছাতু বাবু-দের (দেব পরিবার) কিংবা ভুকৈলাসের মুখার্জি পরিবার হোক; যদিও বোধগম্যতার বিষয়-টি প্রশ্নাতীত। যেহেতু তখন supreme power হিসেবে ইংরেজ-এর উত্থান ঘটে গেছে, যদিও দিল্লীতে মোঘল শাসক তখনো ছিলেন, ইংরেজরা native জমিদারদের পেনশন ব্যবস্থা করলেন। ফলত, জমিদাররা idle হয়ে পড়ল, social work-র প্রবনতা কমতে লাগল, বসে পাওয়া টাকা দিয়ে তারা আমোদ-প্রমোদে মত্ত হয়ে রইল।

নিধু বাবু (রাম নিধি গুপ্ত) জন্মেছিলেন ১৭৪১-এ মারা যান ১৮৩৮-এ। তাঁর সময় যে গান ছিল তা হল আখড়াই গান। আখড়াই মানে হল training center, বৈষ্ণবদের-ও আখড়াই আছে আবার musician-দের ও আখড়াই আছে। আখড়াই গান-এর রূপ ছিল তান-সরগম বাদ দিয়ে খয়াল গাইলে যেমন হবে তেমন। গান-এর তুক গুলি গাইবার পরে বিশ্রামকালে বহুরকম musical instrument বাজত—অনেকটা চাপান-উতোরের মত, এই পদ্ধতি South India থেকে এসেছে।


Verbatim by Mousumi Das

Music in Calcutta prior to Wajed Ali Shah

Told by Dr. Pradip Ghosh
Obtained by Prof. Sanjoy Bandopadhyay, Suranjita Paul
Date 11 July, 2016
Place Sangeet Bhavan, Emerald Bower Campus, Rabindra Bharati University
About Dr. Pradip Ghosh Dr. Pradip Ghosh is a highly acclaimed musicologist in West Bengal.
Tags Calcutta, 17th century, Job Charnock, 1690, Seth Basak, Kirtan, Portuguese, Bramhan, Kayastha, Kaetpara, Bagbazar, Maratha Bridge, Ganges, Sutanuti,
Language Bengali

Dr. Pradip Ghosh speaks :

Some Glimpses of the late 19th century Pakhawaj Players : In and Around Calcutta

Told by Gurudas Ghosh
Obtained by Aloke Narayan Mitra
Date 29 January, 2015
Place Santragachhi, Howrah
On Gurudas Ghosh Well-known Pakhawaj Player.
Key-words Hari Shankar Ghosh, Mridanga, Durlabh Chandra Bhattacharya, Collapsible Howrah Bridge, zamindar, rich people, baithak, yatra style, jatra style, male singer in female voice, 1885-86, 1890’s, Pyari Mohan Das,
Language Bengali

Gurudas Ghosh speaks:

Lal Chand Boral: Pakhawaj to Vocal

Told by Nayak Chand Baral
Obtained by Sanjoy Bandopadhyay
Date 13 January 2015
Place Sangeet Bhavan, Rabindra Bharati Unievrsity, 56A, B.T. Road Campus, Kolkata 700050
About Subrata Roy Chaudhury Dhrupad singer, attached to Rabindra Bharati University
Key words Lal Chand Boral, Baral, Pakhawaj, vocal, Bowbazar Street, late 19th century
Language English

Nayak Chand Baral speaks:

Wajid Ali Shah and Kolkata

Told by Goutam Ghosh
Obtained by Sanjoy Bandopadhyay
Date 17 December 2014
Place Sangeet Bhavan, B.T. Road Campus, Rabindra Bharati University, 56A, B.T. Road, Kolkata 700050
On Goutam Ghosh Faculty member of the Department of Instrumental Music, Rabindra Bharati University, Sarod player [disciple of Ustd. Dhyanesh Khan], Music Director, Music Critic, Composer
Key-words Wajid Ali Shah, Oudh, Ayoddha, thumri, biriyani, instrumental music, chamber music, tabla, Khidirpur, Metia Buruj

আমি যে ঘটনাটা বলব, তখন ব্রিটিশ রাজত্ব এখানে মোটামুটি কায়েম করে বসেছে, তখন তিনটে কালচার পাশাপাশি চলছে, এক হিন্দু ট্রাডিশন, মুসলিম কালচার এবং পাশাপাশি ব্রিটিশ কালচার. ব্রিটিশরা ব্যস্ত ছিল যুদ্ধ ইত্যাদি, ভারতবর্ষ কিভাবে পুরোটা অধিকার করবে এই ভাবনা-চিন্তা নিয়ে. এমত সময়, ১৮৫০ এরকম সময়, তখন ব্রিটিশরা মোটামুটি স্থিতিশীল ভারতবর্ষে, তখন তারা আয়ুধ বা অযোধ্যা অধিকার করল. আয়ুধের তত্কালীন নবাব ওয়াজেদ আলী শাহ. ওয়াজেদ আলী শাহর থেকে

Wajed Ali Shah
Wajed Ali Shah

আয়ুধের তখত কেড়ে নেওয়া হল এবং তাকে নির্বাসিত করা হল কলকাতায়. কলকাতা রাখা ব্রিটিশদের মোটামুটি কর্মস্থান, এখান থেকেই তারা সারা ভারতবর্ষ নিয়ন্ত্রণ করছে. এবং এমন একটি যায়গায় তাঁকে রাখা হল, যেটা মুসলিম অধ্যুষিত এলাকা, খিদিরপুরের কাছাকাছি, জায়গাটার নাম মেটিয়াবুরুজ. এ নামকরণের কারণ হচ্ছে যে কেল্লাটা বানান হয়েছিল সেটি মাটির তৈরি. সেখানে রেখে নবাবকে দেওয়া হল বারো-লক্ষ টাকার পেনশন. বারো-লক্ষ টাকার পেনশন এ তাঁর যে বিলাস-বৈভব কমিয়ে ওয়াজেদ আলী হিসেব করলেন আর ঠিক করলেন যে এই টাকার বৃহত্তম অংশটি তাঁর প্রিয়তম বিষয় সংগীতের জন্য থাকবে. এছাড়া সেই কেয়ারী করা ফুল-ঝাড়, পশু-পাখি তার জানে তার নিজস্ব চিড়িয়াখানা ছিল যেটাকে এখন আলীপুর চিড়িয়াখানা বলা হয়. এ সম্পর্কে একটি জনশ্রুতি আছে, বিখ্যাত জনশ্রুতি. সেসময় উনি মেটিয়াবুরুজ থেকে ওঁর ব্যক্তিগত চিড়িয়াখানায় আসতেন, সেসময় পাশাপাশি ওই ঘোড়া-গাড়ীর পেছনে পেছনে ওঁর বিশালবপু বাঙালী সেক্রেটারি দৌড়তেন. আর ওয়াজেদ আলী শাহ মুখ বাড়িয়ে বলতেন, “বাবু, বৃটিশের ই আইন তাতে আমি তোমাকে আমার এই গাড়ীতে তুলতে পারিনা, কিন্তু তুমি আমার সন্ধ্যেবেলার আসরে এস. এই আসরটা কি, এই আসরটা হচ্ছে সংগীতের আসর. উনি এক বিচিত্র লোক. যখন উনি অযোদ্ধা থেকে আসেন.. ওঁর যে রাজকীয় কারাভান ইত্যাদি সেগুলো স্থলপথে এসেছিল, এতে দীর্ঘদিন সময় লাগে. উনি যাত্রাপথে গান বানালেন, “হম ছোড় চলে লক্ষ্ণৌ নগরী…” একটি বিখ্যাত ঠুমরী. নবাব যে বিশিষ্ট শৈলীর প্রবর্তন করেছিলেন তাকে আমরা বোল–বাঁট বা বন্দিশ-কী-ঠুমরী বলি. “হম ছোড় চলে লক্ষ্ণৌ নগরী…” তত্কালীন বাঙ্গালীমহলে খুব জনপ্রিয় হয়েছিল এবং বহু পরে রবীন্দ্রনথের মনেও সুরটি গেঁথে গিয়েছিল. সেই সুরে কথা রূপান্তর করে উনি গান রচনা করেছিলেন. এইযে উনি অযোদ্ধা থেকে এখানে এলেন, যেমন বললাম এক বিচিত্রমনা মানুষ, আর্ট ও কালচারের এর প্রতি এত অনুরাগ, এর প্রত্যেক

Metibruz
Metiabruz

কাটাই উনি উপভোগ করতেন এবং সেটা ছড়াবার চেষ্টা করতেন. খাবার-দাবার দিকেও তাঁর নজর, কেমন ভাবে বলি, যে বিরিয়ানী আমরা খাই সেটা ওঁর রেসিপি. বিরিয়ানি বহুদিন ধরে শাহজাহান এর আমল থেকেই চলে আসছে. বিরিয়ানি রান্নার খরচা কম করতে উনি বিরিয়ানী তে আলু যোগ করলেন. টাই আলু-যোগে বিরিয়ানি ওয়াজেদ আলী শাহর বানান. আপনারা অনেকেই জানেন যে এই আলু শাহজাহান খেয়ে যেতে পারেননি.

আলাউদ্দিন খাঁসাহেব তাঁর প্রথম গুরু আহমেদ আলী খাঁকে উনি এই ওয়াজেদ আলী শাহর দরবার থেকেই পেয়েছিলেন. উনি তিনটে জিনিস করতেন, গান, গানটা খুব কালোয়াতি গান নয়, বিনোদনের গান, উনি ঠুমরী পছন্দ করতেন এবং নিজে রচয়িতা ছিলেন. সম্ভবত সর্বাধিক আগ্রহ ওনার যন্ত্রসঙ্গীতে ছিল, ওঁর আর্থিক অসুবিধে সত্বেও বহু যন্ত্রসঙ্গীত বাদক এখান থকে মাসোহারা পেতেন.

এর মধ্যে ওঁর মা ও জামাইবাবু লন্ডনে ব্রিটিশদের সাথে মামলাতে প্রায় জিতে নিয়েছেন যে আয়ুধের সিংহাসন ওয়াজেদ আলী শাহ কে ফিরিয়ে দিতে হবে এরকম একটা নির্ণয় যখন প্রিভি কাউন্সিল এ হচ্ছে তখন এক অদ্ভুত ব্যাপার হল. ওয়াজেদ আলী বাংলার সংস্কৃতির সাথে এমন জড়িয়ে গেলেন যে উনি ওঁর সম্পত্তির যে প্রাপ্য অধিকার তা অস্বীকার করলেন, উনি বললেন, “আমি এখানেই থাকব”. এই নির্ণয়টা বাংলার মাটির কল্যাণ এর জন্যেই হল. উনি বাংলার মানুষদের সঙ্গে মিশে, বাংলার সংস্কৃতির সঙ্গে মিশে এতটাই জুড়ে গেলেন যে আর অযোদ্ধায় ফিরে যেতে চাইলেননা, উনি বললেন যে উনি এখানেই সুখী আছেন. এতে বাঙালীর লাভ হলো কি প্রথম যে আসরের প্রবর্তন হল, বিভিন্ন ধনী লোকেদের বাড়ীতে আসার যেমন বিদেশে চেম্বার- মিউজিক হত, যা ছোট পরিসরে হত তার ভারতে প্রবর্তন হল. যেতে রাজদরবারে হত তা মিনি-দরবার যেখানে ছোট ঘরে গান-বাজনার আয়োজন শুরু হল. ওঁর জন্যে বিভিন্ন ঘরের তবলা-বাদক এখানে এলেন. এই নানা বাজনার পরম্পরা এখনও বাংলায় চলছে.